34577
page-template/template_concern_page.php

0
page-template/template_concern_page.php

ট্যান (tan) হওয়া ত্বক: কারণ, প্রতিরোধ ও চিকিৎসা

Highlights

  • ● ত্বক ট্যান হওয়া একটি প্রাকৃতিক প্রক্রিয়া যাতে ত্বক আল্ট্রাভায়োলেট (ultraviolet) রশ্মি লেগে রঙে কালচে হয়ে যায়।
  • ● মেলানিন (melanin) তৈরি বৃদ্ধি পাওয়া, মেলানিন অক্সিডেশন (oxidation) বা মেলানোসাইটের (melanocyte) সংখ্যা বৃদ্ধির ফলে ত্বকের রং ক্রমাগত কালো হয়ে যেতে পারে।
  • ● সূর্যে ট্যান হওয়া ত্বক বেশি স্পষ্টভাবে লক্ষ্য করা যায় কপালে, কপালের পাশে এবং বাহুর বাইরের ভাগে।
  • ● সানস্ক্রিন (sunscreen) হল সূর্যের ক্ষতিকর আল্ট্রাভায়োলেট রশ্মির বিরুদ্ধে শ্রেষ্ঠ সুরক্ষা।
  • ● যে কোনো মানুষেরই ট্যান হওয়ার প্রবণতা আছে, তবে কতখানি হবে তা তার জাতি, বয়স, বাইরে কাজ করার সময়, জামাকাপড়ের ধরণ ও ত্বকের প্রকৃতির উপর নির্ভর করে।
  • ● ৫ বছরের কম বা ৫০ বছরের বেশি বয়সী যে কোনো মানুষের ইউভি রশ্মির প্রভাবে ত্বকে ট্যান হতে পারে।

ট্যান হওয়া ত্বক মানে কি?

ট্যান হওয়া ত্বক অর্থাৎ সেই ত্বক যা অতিরিক্ত সূর্যালোক, বিশেষতঃ ইউভি (UV) রশ্মির ফলে কালো হয়ে গেছে। এটির কারণ হলো ত্বকে বেশি মেলানিন জড়ো হওয়া, যা ত্বকের ক্ষতি প্রতিরোধ করার জন্য স্বাভাবিক সুরক্ষা প্রক্রিয়াতে সৃষ্টি হয়। ইউমেলানিন (eulmelanin) সেই বিশেষ ধরনের মেলানিন যাতে ট্যান হওয়া ত্বকে বাদামি রঙ দেখা যায়।
ট্যান হওয়া অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেহের উন্মুক্ত অংশ যেমন মুখ, বাহু, হাত, পা, পিঠ ও গলায় দেখা যায়।

ত্বক ট্যান হওয়ার কারণ

ত্বক ট্যান হওয়ার প্রধান কারণগুলি হল:
● ইউভি-এ রশ্মি লাগা: ইউভি-এ রশ্মি ক্ষতিকর কেন না এগুলি ত্বকের গভীর স্তর অবধি পৌঁছে সেখানকার কোষগুলিকে আহত করতে পারে।
১. ইউভি-এ রশ্মি সারা বছর লাগতে পারে কারণ এগুলি বায়ুমণ্ডলের ওজোন (ozone) স্তর ভেদ করে ঢুকতে পারে।
২. মেলানোসাইট থেকে কেরাটিনোসাইট (keratinocyte) কোষগুলিতে নিষ্কৃত মেলানিন পিগমেন্ট (pigment) সৃষ্টি বেড়ে যাওয়ার জন্যই ত্বকের বাদামি কালচে রং দেখা দেয়।
৩. ইউভি-এ রশ্মি ত্বকের প্রাকৃতিক কোলাজেনের (collagen) সঞ্চয় ভেঙে দেয়, যার ফলে ত্বকে অকালবার্ধক্য দেখা দেয়।
৪. দীর্ঘদিন ইউভি-এ রশ্মি লাগার ফলে ডিএনএ-র (DNA) ক্ষতি হতে পারে, যা ত্বকের ক্যান্সারের (cancer) কারণ হতে পারে।
● ইউভি-বি রশ্মি লাগা: ইউভি-বি রশ্মি ক্ষতিকর কারণ এটি ত্বকের উপরের স্তরগুলি পুড়িয়ে দিতে পারে।
১. ইউভি-বি রশ্মি গরমকালে বেড়ে যায় ও শীতকালে কমে যায়।
২. পৃথিবীর ওজোন স্তর অধিকাংশ ইউভি-বি আলোকে আটকে দিতে পারে। তবে ৫-১০% ইউভি-বি রশ্মি এটি ভেদ করে ভেতরে পৌঁছয়।
৩. ইউভি-বি রশ্মি লাগলে ডিএনএ-র ক্ষতি হয়ে মেলানিন সৃষ্টি বেড়ে যায়।
৪. অত্যধিক ইউভি-বি রশ্মির ফলে রোদে পোড়া (sunburn), তিল (mole), ত্বকের বার্ধক্য, ত্বকের ট্যান ও কয়েক ধরনের ত্বকের ক্যান্সার হতে পারে।
৫. ইউভি-বি রশ্মি ত্বকে ভিটামিন ডি তৈরির জন্যও দায়ী।
● কৃত্রিম ট্যানের যন্ত্র: ট্যানিং ল্যাম্পের ব্যবহারেও ত্বক কালচে হয়ে যেতে পারে।

প্রকারভেদ ও শ্রেণীবিন্যাস:

আপনার ত্বকের প্রকৃতির সঠিক শ্রেণীবিন্যাস করলে আপনার ত্বকে ট্যানের পরিমাণ আন্দাজ করা সম্ভব।
● যদি আপনার টাইপ ১(type I) ত্বক হয়, তবে আপনার ত্বক ফ্যাকাশে সাদা এবং কখনোই ট্যান হবেনা।
● যদি আপনার টাইপ ২ (type II) ত্বক হয়, তবে আপনার রং সাদা থেকে হালকা হলদে-বাদামি হবে যাতে সামান্য ট্যান হতে পারে।
● যদি আপনার টাইপ ৩ (type III) ত্বক হয়, তবে আপনার ত্বক হলদে-বাদামি রঙের হবে যা ট্যান হয়ে ধীরে ধীরে হালকা বাদামি রঙে পরিবর্তিত হতে পারে।
● যদি আপনার টাইপ ৪ (type IV) ত্বক হয়, তবে আপনার ত্বক হালকা বাদামি রঙের হবে যা ট্যান হয়ে গাঢ় বাদামি হয়ে যেতে পারে।
● যদি আপনার ত্বক টাইপ ৫ (type V) হয়, তবে আপনার ত্বক মাঝারি বাদামি রঙের হবে যা ট্যান হয়ে আরও বেশি বাদামি হয়ে উঠতে পারে।
● যদি আপনার ত্বক টাইপ ৬ (type VI) হয়, তবে তা গাঢ় বাদামি বা কালো রঙের হবে যা অনেকটাই ট্যান হতে পারে।

চিহ্নিত করা

একজন চর্মবিশেষজ্ঞ আপনার ত্বক পরিমাপ করে ট্যানের গভীরতা বুঝতে পারবেন। পরামর্শের সময় আপনার দেহ পুরো পরীক্ষা করা হতে পারে কারণ আপনার ডাক্তার ট্যানের কারণ এবং ব্যাপ্তি বুঝতে চেষ্টা করবেন।

আপনার কি ঝুঁকি আছে?

সকলেরই ত্বক ট্যান হতে পারে। তবে যাদের ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি তারা হল:
● ৫ বছরের কমবয়সী বাচ্চা এবং ৫০ বছরের বেশি বয়সী ব্যক্তিদের ত্বক পাতলা এবং ক্ষতিকর আল্ট্রাভায়োলেট রশ্মির প্রতি বেশি স্পর্শকাতর হয়ে যায়।
প্রতিরক্ষা শক্তির ত্রুটি (immune deficiency) বা দীর্ঘস্থায়ী রোগ আছে এমন ব্যক্তিরা ইউভি রশ্মির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় বেশি ভুগতে পারেন।

প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ

চর্মবিশেষজ্ঞরা ত্বকে ট্যান প্রতিরোধ করতে নিম্নলিখিত পরামর্শগুলি দেন:
● এমন একটি সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন যেটি সারাবছর ইউভি-এ ও ইউভি-বি রশ্মি থেকে সুরক্ষা দিতে পারে বলে লেবেল (label) করা আছে। সানস্ক্রিন লোশনের (lotion) এসপিএফ (SPF) অধিকাংশ ত্বকের জন্য অন্ততঃ ৩০ হওয়া উচিত। কিছু মানুষের ত্বকের প্রকৃতি অনুযায়ী এসপিএফ ৫০-এরও প্রয়োজন হতে পারে। চর্মবিশেষজ্ঞর দেওয়া সানস্ক্রিন ব্যবহার করা উচিত।
● যখন রোদ সবচেয়ে চড়া, বিশেষতঃ সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টের মধ্যে সূর্যালোক এড়িয়ে চলুন।
● একটি টুপি বা রুমাল দিয়ে মাথা ঢেকে রাখুন ও চোখে রোদচশমা পরুন।
● জামাকাপড় দিয়ে ত্বক সুরক্ষিত করুন। গাঢ় রঙের, ঘনভাবে গাঁথা বা সেলাই করা কাপড় রোদ থেকে ত্বকের ক্ষতি আটকাতে পারে।

নিজের যত্ন নেওয়া:
ট্যান হওয়া ত্বকের চিকিৎসার অনেক ঘরোয়া সমাধান পাওয়া যায়। যদিও এই প্রক্রিয়াগুলি বেশ জনপ্রিয়, তবুও এগুলি যতদূর সম্ভব এড়িয়ে চলাই ভাল। এগুলি সাময়িকভাবে আরাম দিলেও, এই ধরণের সমাধান অনুসরণ করার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

চিকিৎসাবিকল্প

আপনি যদি ত্বকের ট্যান দূর করতে চান, তবে অলিভা স্কিন এবং হেয়ার ক্লিনিকে আসুন। এখানে এই কয়েক ধরণের ট্যানের চিকিৎসা পাওয়া যায়:

● কেমিক্যাল পিল (chemical peel)
● লেজার টোনিং (laser toning) চিকিৎসা
● লাগানোর (topical) ও খাবার ওষুধ

অলিভা ক্লিনিকের অভিজ্ঞ ও প্রশিক্ষিত চর্মবিশেষজ্ঞরা আপনার জন্য একটি সঠিক চিকিৎসার পরিকল্পনা করে দিতে পারবেন। তাঁরা আপনাকে চিকিৎসা-পরবর্তী যত্ন নিয়েও পরামর্শ দিতে পারবেন যাতে আপনি সবচেয়ে ভালো ফল পান এবং দীর্ঘদিন সন্তুষ্ট থাকতে পারেন। আজকেই যোগাযোগ করুন।

আরোগ্যসম্ভাবনা

আপনার চর্মবিশেষজ্ঞ ত্বকের ট্যান সরিয়ে আপনার ত্বকের রং উজ্জ্বল করার জন্য প্রত্যেকটি ধাপে আপনার সাথে কাজ করবেন। অলিভা স্কিন এবং হেয়ার ক্লিনিকে একজন অভিজ্ঞ চর্মবিশেষজ্ঞর সাথে অ্যাপয়েন্টমেন্ট বুক (book appointment) করতে ফোন করুন কারণ আপনার ত্বকের সুরক্ষা একান্তই প্রয়োজনীয়।

Want a callback?Please fill this form

Subscribe to Newsletter

Expert guide to flawless skin and nourished hair from our dermatologists!