34564
page-template/template_concern_page.php

0
page-template/template_concern_page.php

স্কিন ট্যাগ (skin tag): কারণ, চিকিৎসা বিকল্প ও প্রতিরোধের উপায়

Highlights

  • ● স্কিন ট্যাগ এক ধরণের ত্বকের রোগ যা অসংক্রামক; এতে ত্বকের উপর থেকে কিছুটা ত্বকের টিস্যু (tissue) বাইরে গজিয়ে ওঠে। এগুলি সাধারণতঃ যন্ত্রণামুক্ত ও নির্দোষ হয়।
  • ● স্কিন ট্যাগ সাধারণ জনসংখ্যার ৪৬% মানুষের মধ্যে দেখা যায়। অধিকাংশ ক্ষেত্রে এগুলি ৪০ বছরের বেশি বয়সের ব্যক্তিদের দেহে পাওয়া যায়, তবে আরো কম বয়সেও দেখা দিতে পারে। মহিলা ও পুরুষ উভয়ের মধ্যে সমানভাবে দেখা যায়।
  • ● যেহেতু ত্বকের ঘর্ষণ ট্যাগ তৈরি হওয়ার একটি বড় কারণ, অতএব এগুলি শরীরের এমন অংশে দেখা যায় যেখানে ত্বক ভাঁজ হয়ে থাকে- যেমন ঘাড়, বুকের উপরভাগ, বগল, স্তনের তলায়, চোখের পাতায়, কুঁচকিতে, উরুর ভিতর দিকে।
  • ● আপনি আরামের জন্য বা সৌন্দর্য্যবৃদ্ধির জন্য এই ট্যাগগুলি দূর করাতে পারেন; কাঁচি দিয়ে এক্সিশন (scissor excision)(কেটে), ইলেক্ট্রোকটারী (electrocautery) (পুড়িয়ে), রেডিওফ্রিকোয়েন্সি এবলেশন (radiofrequency ablation) (পুড়িয়ে) বা ক্রায়োসার্জারির (ঠান্ডায় জমিয়ে) মাধ্যমে এগুলি দূর করা যায়।
  • ● সাধারণতঃ চর্মবিশেষজ্ঞরা একটি সেশনে (session) সমস্ত স্কিন ট্যাগ দূর করে দেন, এবং এক সপ্তাহ বা ১০ দিন বাদে প্রয়োজন হলে একটি টাচ-আপ সেশন (touch-up session) করতে পারেন। ট্যাগ সংখ্যায় বেশি আপনার চর্মবিশেষজ্ঞ একাধিক সেশনে ভাগ করার পরামর্শ দিতে পারেন।

স্কিন ট্যাগ কি?

স্কিন ট্যাগ একটি রোগ যাতে ত্বকের রঙের কিছু টিস্যু বাইরে ঝুলে থাকে। চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় একে অ্যাক্রোকর্ডন (acrochordon) বলা হয়। স্কিন ট্যাগ নিতান্তই নিরীহ, যন্ত্রণাহীন এবং অসংক্রামক রোগ; আঁচিলের মতো নয়। এগুলি সাধারণতঃ ঘাড়ে, বগলে, চোখের পাতায় ও কুঁচকিতে পাওয়া যায়, এবং এর আকার ও আকৃতি বিভিন্নরকমের হতে পারে। এগুলি টাইপ-২ ডায়াবেটিস (type-2 diabetes) এবং ইনসুলিন রেজিস্ট্যান্স (insulin resistance) রোগীদের বেশি পাওয়া যায়; যাদের ওজন বেশি তাদের মধ্যেও বেশি দেখা যায়।

স্কিন ট্যাগ হওয়ার কারণ কি?

স্কিন ট্যাগ হওয়ার প্রধান কয়েকটি কারণ হল:
● ভাঁজ খাওয়া ত্বক: ত্বক ভাঁজ খেয়ে গেলে ভাঁজগুলি একে অপরের সাথে ঘষাঘষি করে ত্বকে প্রদাহ সৃষ্টি করতে পারে, যার থেকে স্কিন ট্যাগ দেখা দিতে পারে।
● ওজনবৃদ্ধি: মোটা মানুষরা এবং যাদের বডি মাস ইনডেক্স (বিএমআই)(body mass index/BMI) স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি, তাদের ত্বক বেশি ঝুলে পড়ে ও ভাঁজ হয়ে যায়, যার ফলে প্রদাহ ও স্কিন ট্যাগ দেখা দিতে পারে।
● জেনেটিক (genetic): পরিবারে কারুর স্কিন ট্যাগ হয়ে থাকলে সেটিও আপনার স্কিন ট্যাগ হওয়ার জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারে।
● কিছু অসুখ: যে ক্লায়েন্টদের (clients) ডায়াবেটিস, স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি রক্তে সুগার (sugar) ও ইনসুলিন রেজিস্ট্যান্স হওয়ার ইতিহাস থেকে তাদের স্কিন ট্যাগ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। লিপিডের (lipid) সমস্যা ও লিভার এনজাইমের (liver enzymes) অস্বাভাবিকতা- এগুলিও অ্যাক্রোকর্ডনের সঙ্গে জড়িত।
● ত্বকের বার্ধক্য: ত্বকের বার্ধক্যের চিহ্ন হিসেবে স্কিন ট্যাগ দেখা দিতে পারে।
● গর্ভধারণ: অ্যাক্রোকর্ডন গর্ভাবস্থায় হরমোনের (hormonal) পরিবর্তন (ইস্ট্রোজেন (estrogen) ও প্রোজেস্টেরনের (progesterone) মাত্রা বেড়ে যাওয়া) এবং ওজনবৃদ্ধির ফলে হতে পারে।

স্কিন ট্যাগ চিহ্নিত (diagnosis) করা:

একজন যোগ্যতাসম্পন্ন চর্মবিশারদ উদ্দিষ্ট অংশের ত্বক ভালভাবে দেখে পরীক্ষা করে স্কিন ট্যাগ চিহ্নিত করতে পারেন। স্কিন ট্যাগ অধিকাংশ ক্ষেত্রে মাংসের রঙের হয়, কিন্তু এগুলি পাক খেয়ে যাওয়ার ফলে কখনও রক্ত চলাচল কমে গেলে এর রং গাঢ়-বাদামি বা কালো হয়ে যেতে পারে।

প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের ব্যাপারে কিছু পরামর্শ:

আপনি অধিকাংশ স্কিন ট্যাগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ করার জন্য নিম্নলিখিত টিপস (tips) অনুসরণ করতে পারেন:

● স্কিন ট্যাগ সফল ভাবে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য আপনি একটি সুস্থ ওজন ধরে রাখুন, কারণ মোটা হয়ে যাওয়া স্কিন ট্যাগের জন্য একটি বড় ঝুঁকি।
● রক্তে সুগার ও ইনসুলিনের মাত্রা স্বাভাবিক রাখলে ভবিষ্যতে স্কিন ট্যাগ হওয়া প্রতিরোধ করা যায়।
● গয়না ও মোটা জামাকাপড় যেগুলি স্কিন ট্যাগের সাথে ঘষা খেতে পারে সেগুলি পরা এড়িয়ে চলুন।

ডাক্তার কখন দেখানো উচিত?

আক্রান্ত স্থানে রক্তপাত হলে তৎক্ষণাৎ ডাক্তারি পরামর্শ নেওয়া উচিত। সঠিক সময়ে চিকিৎসা করলে অন্য কোনো সংযুক্ত রোগও ধরা পড়া সম্ভব।

চিকিৎসাবিকল্প:

অলিভা স্কিন এবং হেয়ার ক্লিনিকে স্কিন ট্যাগের একটি বিশ্বমানের চিকিৎসাপদ্ধতি পাওয়া যাচ্ছে। আমাদের বিশেষজ্ঞ চর্মবিদরা অত্যাধুনিক যন্ত্রের মাধ্যমে নিম্নলিখিত প্রক্রিয়াতে স্কিন ট্যাগের চিকিৎসা করে থাকেন:

● ইলেক্ট্রোকটারী (পোড়ানো)/রেডিওফ্রিকোয়েন্সি এবলেশন

ঘরোয়া সমাধান:

ঘরোয়া সমাধানের ব্যবহার এড়িয়ে চলা উচিত কারণ এতে সংক্রমণ হওয়ার আশঙ্কা থাকে যার ফলে জটিলতা দেখা দিতে পারে। স্কিন ট্যাগের চিকিৎসা করার সময় সর্বদা একজন অভিজ্ঞ চর্মবিশারদের মতামত নেবেন।

স্কিন ট্যাগ নিজে যদিও ক্ষতিকর বা যন্ত্রণাদায়ক নয়, তবে এটি সংশ্লিষ্ট অন্য কোনো রোগের ইঙ্গিত দিতে পারে। সবচেয়ে ভালো কাজ হল একজন যোগ্য চর্মবিশেষজ্ঞর সাথে অ্যাপয়েন্টমেন্ট (appointment) করে এর কারণ খুঁজে বের করা ও উপযুক্ত চিকিৎসার পরিকল্পনা করা।

Want a callback?Please fill this form

Subscribe to Newsletter

Expert guide to flawless skin and nourished hair from our dermatologists!