34570
page-template/template_concern_page.php

0
page-template/template_concern_page.php

স্ট্রেচ মার্কস (stretch marks): কারণ, চিকিৎসা ও যত্ন

Highlights

  • ● স্ট্রেচ মার্কস বা স্ট্রায়া (striae) প্রধানতঃ দেখা যায় বয়ঃসন্ধিকালে, গর্ভবতী মহিলাদের এবং মোটা মানুষদের।
  • ● ত্বকে প্রসারণের কারণে স্ট্রেচ মার্কস হয় এবং এগুলি পেটে, পিছনে ও উরুর উপর দেখা যায়।
  • ● এমনিতে স্ট্রেচ মার্কসের কোনো ঝুঁকি নেই, তবে কদাচিৎ এটি অন্য কোনো রোগের উপসর্গ হিসেবে দেখা দিতে পারে।
  • ● পুরোনো স্ট্রেচ মার্কস হালকা করা মুশকিল; তাই তাড়াতাড়ি পরামর্শ নেওয়া উচিত। লেজার (laser) ও মাইক্রোনিডলিং রেডিওফ্রিকোয়েন্সি (microneedling radiofrequency) এর কার্যকরী চিকিৎসা।

স্ট্রেচ মার্কস কি?

স্ট্রেচ মার্কস বা স্ট্রায়া হল সাদা বা গোলাপি রেখাকৃতি ক্ষতচিহ্ন যা ত্বকের উপর দেখা যায়। ত্বক যখন স্বাভাবিক স্থিতিস্থাপকতার (elasticity) চেয়ে বেশি প্রসারিত হয় তখন নিচে তার সহায়ক কোলাজেন (collagen) ও ইলাস্টিন (elastin) তন্তুগুলি ছিঁড়ে যায়। এরপরে ত্বক সেরে উঠলে এই ক্ষতচিহ্নগুলি দেখা যায়। স্ট্রেচ মার্কস সাধারণতঃ কাঁধে, পেটে, পায়ের গোছে, কোমরে ও উরুতে দেখা যায়। সময়ের সাথে এগুলি কমতে পারে, কিন্তু পুরোপুরি মেলায় না।

স্ট্রেচ মার্কসের প্রকারভেদ

স্ট্রেচ মার্কস কিভাবে তৈরি হয় ও কিরকম দেখতে হয় তার উপর নির্ভর করে দুই প্রকারের হতে পারে:

● স্ট্রায়া রুব্ৰা (striae rubrae): স্ট্রেচ মার্কস তৈরি হওয়ার প্রথমদিকে এই রূপ দেখা যায়। এগুলি হালকা লাল, সরু ও লম্বা রক্তশিরার মত দেখতে লাগে। বেশ কয়েক মাস বা বছর পরে এগুলি হালকা হয়ে সাদা স্ট্রায়া হয়ে যায়।

● স্ট্রায়া অ্যালবা (striae albae): এগুলি সাদা, ভাঁজ পড়া ও ত্বকের নীচে বসে যাওয়া দীর্ঘস্থায়ী স্ট্রেচ মার্কস। এদের রূপের উপর নির্ভর করে এদের স্ট্রায়া অ্যাট্রফিক্যান্স (atrophicans), স্ট্রায়া নাইগ্রা (nigrae), স্ট্রায়া সেরুলা (caerulea) ও স্ট্রায়া গ্র্যাভিডেরাম (gravidarum)- এগুলিতে বিভক্ত করে হয়।

স্ট্রেচ মার্কসের অন্যান্য প্রকার:

● স্ট্রায়া অ্যাট্রফিক্যান্স: এই স্ট্রেচ মার্কসগুলি পাতলা ত্বকের সাথে জড়িত। কুশিং’স সিনড্রোম (Cushing’s syndrome) জাতীয় অসুখ বা দীর্ঘদিন কর্টিকোস্টেরয়েড (corticosteroid) ব্যবহারের ফলে এগুলি দেখা যেতে পারে।

● স্ট্রায়া নাইগ্রা: সাধারণতঃ শ্যামবর্ণ ত্বকে দেখা যায়; এগুলি গাঢ় ছাই বা কালো রঙের হয়।

● স্ট্রায়া সেরুলা: এগুলি গাঢ় নীল-বেগুনী রঙের হয় এবং শ্যামবর্ণ ত্বকে দেখা যায়।

● স্ট্রায়া গ্র্যাভিডেরাম: গর্ভধারণ-সম্পর্কিত স্ট্রেচ মার্কস।

শরীরে স্ট্রেচ মার্কস কেন হয়?

দেহে স্ট্রেচ মার্কস হওয়ার কিছু কারণ হল:

● বয়ঃসন্ধির সময় বৃদ্ধি- প্রায় ৬-৮৬% মানুষের বয়ঃসন্ধির সময় স্ট্রেচ মার্কস দেখা দিতে পারে। কিশোর-কিশোরীরা কিছুটা লম্বা হওয়ার পর নিজেদের উরু, বুক ও পিঠে হালকা গোলাপি বা হালকা থেকে গাঢ় বাদামি স্ট্রায়া দেখতে পেতে পারে।

● ওজনবৃদ্ধি- প্রায় ৪৩% মানুষ দ্রুত ওজনবৃদ্ধির ফলে এই সমস্যায় ভোগেন। ওজন বাড়লে ত্বক প্রসারিত হয়, নীচে ডার্মাল টিস্যু (dermal tissue) ফেটে যায়, যার ফলে স্ট্রেচ মার্কস দেখা যায়।

● গর্ভধারণ- এটি সবচেয়ে সাধারণ হেতু কারণ প্রায় ৪৩-৮৮% মহিলা স্ট্রেচ মার্কসের সমস্যার মুখোমুখি হন। গর্ভাবস্থায় ওজন বাড়ার ফলে ত্বকের অনেকখানি প্রসারণ হয় এবং চুলকানি সহ স্ট্রেচ মার্কস দেখা যেতে পারে, বিশেষতঃ পেটে। গবেষণায় দেখা গেছে গর্ভধারণ-সম্পর্কিত স্ট্রেচ মার্কস বয়স্ক মায়েদের তুলনায় কমবয়সী মায়েদের বেশি দেখা যায়।

● হরমোনের (hormone) তারতম্য- অ্যাড্রেনাল গ্রন্থি (adrenal) থেকে অতিরিক্ত কর্টিসোন (cortisone) বেরোলে প্রোটিন ক্যাটাবলিজম (protein catabolism) হতে পারে, যেমন আঘাত লাগলে, স্ট্রেস (stress) বা অসুখ হলে দেখা যায়। এর ফলে ইলাস্টিন তন্তুতে চাপ পড়ে স্ট্রেচ মার্কস তৈরি হতে পারে।

● জেনেটিক প্রবণতা (genetic propensity)- বিশদ চর্চা না করা হলেও সন্দেহ করা হয় যে স্ট্রায়া হওয়ার পিছনে জিনের (gene) ভূমিকা থাকতে পারে। যাদের পরিবারে কারুর স্ট্রেচ মার্কস হওয়ার ইতিহাস আছে তাদের নিজেদের জীবনেও কখনও স্ট্রেচ মার্কস দেখা দিতে পারে, কোলাজেন ও ফাইব্রোনেকটিন (fibronectin) জিন কম প্রকাশিত হওয়ার জন্য।

● অন্য রোগের উপসর্গ হিসেবে- কুশিং’স সিনড্রোম বা মারফ্যান (Marfan) সিনড্রোমের রোগীদের স্ট্রায়া অ্যাট্রফিক্যান্স (পাতলা ত্বক) হতে পারে।

● ওজন কমা- অনেকখানি ওজন হঠাৎ কমে গেলে প্রসারিত ত্বক ঝুলে পড়ার ফলেও স্ট্রেচ মার্কস দেখা দিতে পারে।

● দীর্ঘদিন স্টেরয়েড ব্যবহার- বহুদিন ধরে প্রচুর কর্টিকোস্টেরয়েড ব্যবহার করলে স্ট্রায়া হতে পারে।

লক্ষণ ও উপসর্গ

স্ট্রেচ মার্কস দেখতে হয় উঁচু, লালচে, বাদামি বা বেগুনী-গোলাপি ক্ষতচিহ্নের মত, মাঝে মাঝে চুলকানি হতে পারে। সময়ের সাথে এগুলি সরু হয়ে যায় এবং আরো গভীর, গাঢ় বা কখনও সাদা, ত্বকের নীচে বসে যাওয়া রেখার মত দেখতে লাগে। প্রাথমিক পর্যায়ে এর চিকিৎসা করা তুলনামূলকভাবে সহজ ও কার্যকরী হয়।

চিহ্নিত করা

স্ট্রেচ মার্কস যদি পরিমাণে অনেক হয় বা সারাক্ষণ চুলকায় তাহলে একজন বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া উচিত। সমস্যার গুরুত্বের উপর নির্ভর করে একজন চর্মবিশেষজ্ঞ আপনার জন্য উপযুক্ত রাস্তা ঠিক করে দিতে পারবেন।

চিকিৎসা বিকল্প:

স্ট্রেচ মার্কসের চিকিৎসা মুশকিল; এগুলি কমাতে কিছু বিশেষ প্রক্রিয়ার প্রয়োজন হয়। নিম্নলিখিত চিকিৎসাপদ্ধতি গুলি পাওয়া যায়:
● মাইক্রোনিডলিং রেডিওফ্রিকোয়েন্সি (microneedling radiofrequency) (MNRF)
● কেমিক্যাল পিল (chemical peel)
● ট্রেটিনয়েন মলম (tretinoin cream)

Stretch Mark Removal Procedure at Oliva Skin And Hair Clinic: (Video heading)
অলিভা স্কিন এবং হেয়ার ক্লিনিকে স্ট্রেচ মার্কস দূর করার প্রক্রিয়া:
স্ট্রেচ মার্কস পুরোপুরি দূর করা শক্ত, তবে আধুনিক প্রযুক্তি ও অভিজ্ঞ চিকিৎকের তদারকিতে এগুলি অনেকটাই কমানো সম্ভব। স্ট্রেচ মার্কস চিকিৎসার জন্য সঠিক ডাক্তারি পরামর্শ নেওয়া উচিত। আরও বিশদ জানতে আপনি অলিভা স্কিন এবং হেয়ার ক্লিনিকে বিশেষজ্ঞদের সাথে পরামর্শের জন্য একটি অ্যাপয়েন্টমেন্ট (appointment) বুক (book) করুন।

স্ট্রেচ মার্কস কিভাবে প্রতিরোধ করা যায়?

গর্ভাবস্থায় লাগানোর (topical) ওষুধ দিয়ে স্ট্রেচ মার্কস প্রতিরোধের কার্যকারিতা নিয়ে কোনো বৈজ্ঞানিক প্রমাণ নেই।

স্বীকৃতি (disclaimer): গর্ভবতী মহিলারা এরকম কোন চিকিৎসাপদ্ধতি অনুসরণ করার আগে বাচ্চার নিরাপত্তার ব্যাপারে নিজের ডাক্তারের সাথে অবশ্যই পরামর্শ করে নেবেন।

স্ট্রেচ মার্কসের ঘরোয়া সমাধান:

● একবার স্ট্রেচ মার্কস দেখা দিলে ঘরোয়া সমাধানে সেরকম কিছু লাভ হয়না। এভাবে চিকিৎসা করার আগে একজন বিশেষজ্ঞ চর্মচিকিৎসকের মতামত নেওয়া প্রয়োজন।

Want a callback?Please fill this form

Subscribe to Newsletter

Expert guide to flawless skin and nourished hair from our dermatologists!